প্রোটিয়া তারকা ডি ককের ক্যারিয়ার নিয়ে শঙ্কা!

প্রোটিয়া তারকা ডি ককের ক্যারিয়ার নিয়ে শঙ্কা!

ক্রিকেটবিশ্ব যখন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের লড়াই দেখার নেশায় বুঁদ, খেলোয়াড়রা যখন ব্যাটে-বলের লড়াইয়ে প্রতিপক্ষকে ঘায়েলের পরিকল্পনা আঁটতে ব্যস্ত, তখন দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটে বইয়ে অস্থিরতা।

বাতাসের গুঞ্জন, বর্ণবাদের কালোমেঘ ফের ঘিরে ধরেছে নেলসন ম্যান্ডেলার দেশের ক্রিকেটকে।

যে কারণে মঙ্গলবারের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মাঠে দেখা যায়নি প্রোটিয়াদের দলের অন্যতম সেরা তারকা কুইন্টন ডি কককে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুবাইয়ে টস করতে নেমে দক্ষিণ আফ্রিকান অধিনায়ক টেম্বা বাভুমা জানালেন, দলের অন্যতম সেরা তারকা ডি কক আজ খেলছেন না।

প্রোটিয়া গণমাধ্যমগুলোর খবর, বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলন ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটারে আন্দোলনে সমর্থন দেননি ডি কক। বিষয়টিতে প্রোটিয়া বোর্ডের কর্মকর্তারা মনক্ষুণ্ন। তাদের চক্ষুশূল হয়েছেন এ উইকেটকিপার ব্যাটার।

এছাড়া ইংল্যান্ডের জনপ্রিয় ক্রীড়াবিষয়ক সংবাদমাধ্যম ‘স্কাই স্পোর্টস’-এর দাবি , বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনে হাঁটু গেড়ে না বসায় বিশ্বকাপ থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে ডি কককে।

তবে বাভুমার দাবি, নাহ, এমন কোনো ইস্যু নেই এখানে, ব্যক্তিগত কারণেই মঙ্গলবারের ম্যাচটি খেলেননি ডি কক।

প্রশ্ন উঠেছে, আগামী ৩০ অক্টোবর স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ডি কক নামবেন কি না বা সুপার টুয়েলভে দলটির বাকি ম্যাচগুলোতে তাকে দেখা যাবে কি না!

যার স্পষ্ট জবাব প্রোটিয়া অধিনায়ক বা দেশটির বোর্ড থেকে পাওয়া যায়নি।

এমন পরিস্থিতিতে ভারতের জনপ্রিয় ক্রিকেট বিশ্লেষক ও ধারাভাষ্যকার হার্শা ভোগলের আশঙ্কা, ডি ককের ক্রিকেট ক্যারিয়ারই ধ্বংস হয়ে যেতে পারে।

হার্শা ভোগলে এক টুইটে লিখেছেন, ‘আমার ভয় হচ্ছে, ডি কক ইস্যুতে না আবার আমরা শেষ কথা শুনে ফেলি! যদি আবারও তাকে প্রোটিয়া জার্সিতে দেখা না যায়, আমি বিস্মিত হবো না।’

উল্লেখ্য, দক্ষিণ আফ্রিকা বোর্ডের কড়া নির্দেশ আছে, বিশ্বকাপে দলের ক্রিকেটারদের অবশ্যই ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ আন্দোলনে শরীক থাকতে হবে ও ম্যাচের আগে হাঁটু গেড়ে বসতে হবে।

কিন্তু আগের ম্যাচে দেখা গেছে, খেলোয়াড়রা সবাই হাঁটু গেড়ে বসলেও ডি কক কোমড়ে হাত দিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন। আর ডি ককের এই আচরণে অসন্তুষ্ট প্রোটিয়া বোর্ড।

এখন পরবর্তী ম্যাচই বলে দিবে কোনটা সত্যি। ব্যক্তিগত কারণে ডি কক উইন্ডিজের বিপক্ষে খেলেননি নাকি বর্ণবাদের ইস্যুটাই সত্যি।

পরেরটা সত্যি হলে ডি ককের ক্রিকেট ক্যারিয়ার নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ অমূলক নয়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *