রূপগঞ্জ ট্র্যাজেডি: নিখোঁজের তালিকায় কিশোরগঞ্জের আরও ৭ জন

রূপগঞ্জ ট্র্যাজেডি: নিখোঁজের তালিকায় কিশোরগঞ্জের আরও ৭ জন

এছাড়া মরদেহ এসেছে অগ্নিকাণ্ডের সময় বহুতল ভবন থেকে লাফিয়ে পড়ে মারা যাওয়া এক নারী শ্রমিকের। 

এর আগে এক এসএসসি পরীক্ষার্থীসহ ১৪ নারী-পুরুষ শ্রমিক নিখোঁজ থাকার খবর পাওয়া গিয়েছিল। 

নিখোঁজের তালিকায় নতুন করে যারা যুক্ত হয়েছেন তারা হলেন- জেলার করিমগঞ্জ উপজেলার জয়কা ইউনিয়নের মথুরাপাড়ার গ্রামের আব্দুল কাইয়ুমের স্ত্রী পাখিমা আক্তার (৩৫), একই গ্রামের তাহের উদ্দিনের একমাত্র ছেলে নাঈম (১৮), একই ইউনিয়নের দক্ষিণ নানশ্রীর মাসুদ মিয়ার ছেলে সোহাগ (১৩), মুলামখারচরের সুজন মিয়ার মেয়ে ফাতেমা আক্তার (১৭), সদর উপজেলার বৌলাই দক্ষিণ রাজকুন্তি গ্রামের আব্দুল কাদিরের মেয়ে আমেনা (৪০), শেওড়া গ্রামের কাইয়ুমের মেয়ে খাদিজা, বড়খালের পাড়ের আজিজুল হকের মেয়ে মোছা. রহিমা আক্তার (৪০) ও জেলার মিঠামইন উপজেলার গোপদীঘি গ্রামের মো. সেলিমের মেয়ে সেলিনা বেগম (১৪)।

কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শামীম আলম জানান, নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে সেজান জুস কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে শ্রমিক মারা যাওয়ার বিষয়টি হৃদয়বিদারক ও  মর্মান্তিক। এ পর্যন্ত এ অগ্নিকাণ্ডে কিশোরগঞ্জ জেলার মোট কতজন মারা গেছেন তার সঠিক তালিকা এখনো পাওয়া যায়নি। তবে জেলার সদর, করিমগঞ্জ, কটিয়াদী ও মিঠামইন উপজেলার অনেকেই নিখোঁজ রয়েছেন বলে জানা গেছে। যারা নিখোঁজ তাদের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য সংশ্লিষ্ট উপজেলার নির্বাহী অফিসারদের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

প্রশাসনের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত এসব পরিবারকে সব ধরনের সহায়তা করা হবে। সংশ্লিষ্ট পরিবারকে খাদ্য সহায়তা, ডিএনএ স্যাম্পল দিতে স্বজনদের গাড়িভাড়া ও লাশ দাফন-কাফনের ব্যবস্থাও করা হবে বলে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।g

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *