ইভ্যালির রাসেলের ‘মুক্তি’ চেয়ে আদালত প্রাঙ্গণে বিক্ষোভ

ইভ্যালির রাসেলের ‘মুক্তি’ চেয়ে আদালত প্রাঙ্গণে বিক্ষোভ

প্রতারণা করে অর্থ আত্মসাতের মামলায় গ্রেফতার আলোচিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. রাসেলের ‘মুক্তির’ দাবি জানিয়ে এবার আদালত প্রাঙ্গণে বিক্ষোভ করেছেন ভুক্তভোগী গ্রাহকরা।

শুক্রবার বিকালে রাসেল ও তার স্ত্রীর তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর হওয়ার পরই ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতের সামনে বিক্ষোভ করেন তারা।

এর আগে দুপুর দুইটার দিকে রাসেল ও শামীমাকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয়। প্রতারণার মাধ্যমে গ্রাহকের টাকা আত্মসাতের মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রাসেল ও শামীমাকে ১০ দিন করে রিমান্ডে নেওয়া আবেদন করে পুলিশ। উভয়পক্ষের শুনানি নিয়ে রাসেল ও শামীমাকে তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

তাদের রিমান্ড মঞ্জুরের খবর পেয়েই আদালতের সামনে অর্ধশত ভুক্তভোগী গ্রাহক বিক্ষোভ শুরু করেন। তারা ইভ্যালির সিইও রাসেল ও তার স্ত্রী নাসরিনের ‘মুক্তি’ দাবি করেন। বিক্ষোভ কেন করছেন- এমন প্রশ্নের জবাবে তারা বলেন, রাসেলকে গ্রেফতার না করা হলে আমরা দ্রুত পণ্য বা টাকা ফেরত পেতেন। এখন রাসেল ও তার স্ত্রীকে গ্রেফতার করে রিমান্ডে নেওয়ায় পণ্য বা টাকা ফেরত পাওয়ার বিষয়ে শঙ্কা প্রকাশ করছি। এজন্য আমরা বিক্ষোভ করছি।

বিক্ষোভের একপর্যায়ে পুলিশ তাদেরকে সেখান থেকে সরিয়ে দেয়। এ সময় একজনকে আটক করা হয় বলে কোতয়ালী থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মো. নাজমুল হোসেন।

গতকাল (১৬ সেপ্টেম্বর) বিকালে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের স্যার সৈয়দ রোডের বাসা থেকে রাসেল ও শামীমাকে গ্রেফতার করে র‍্যাব। সে সময়ও রাসেলের বাসার সামনে জড়ো হয়ে ভুক্তভোগী গ্রাহকরা বিক্ষোভ করেন। দাবি জানান রাসেলকে গ্রেফতার না করতে। তারা সে সময় নানান স্লোগানও দেন রাসেল ও তার স্ত্রীর মুক্তির দাবিতে।

পরে তাদের র‌্যাব সদর দপ্তরে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে সংবাদ সম্মেলন শেষে আজ (শুক্রবার) রাসেল ও শামীমাকে গুলশান থানায় হস্তান্তর করে র‌্যাব।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *