একই দিনে প্রবাসে ছেলের দেশে বাবার মৃত্যু

একই দিনে প্রবাসে ছেলের দেশে বাবার মৃত্যু

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একই দিনে প্রবাসে থাকা ছেলে ও দেশে বাবার মৃত্যু হয়েছে। বাবা ও ছেলের এমন মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

মঙ্গলবার মধ্যরাতে কুণ্ডা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. হামিদ হোসেন (৬০) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নিউ ল্যাব এইড হাসপাতালে মারা যান। একই দিন তার ছেলে সোহেল মিয়া (২৬) সাইপ্রাসের একটি হাসপাতালে বাংলাদেশ সময় ৮টায় মারা যান।

জানা যায়, গত ২০ আগস্ট মো. হামিদ হোসেন শ্বাসকষ্টজনিত কারণে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নিউ ল্যাব এইড হাসপাতালে ভর্তি হন।

অন্যদিকে ২৭ জুলাই সোহেলের শরীরে অক্সিজেনের ঘাটতি দেখা দিলে তাকে দ্রুত লিমাসল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে পরীক্ষায় তার করোনা ধরা পড়ে। করোনা থেকে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হলে লিমাসল হাসপাতাল থেকে রাজধানীর নিকোশিয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। কয়েক দিন হাসপাতালে থেকে ২৪ আগস্ট পিতা-পুত্রের একই দিনে মৃত্যু হয়।

কুণ্ডা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সহিদুল ইসলাম বলেন, হামিদ স্যারের সঙ্গে আমি দুই যুগ শিক্ষকতা করেছি। উনার ছেলে সোহেলও আমার সরাসরি ছাত্র ছিল। একসঙ্গে তাদের দুজনকে হারিয়ে আমরা বাকরুদ্ধ।

মারা যাওয়া শিক্ষকের ভাতিজা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইমরান মিয়া বলেন, আমার চাচাকে কবরে রেখে বাসায় আসার পরই ফোন আসে সাইপ্রাসে সোহেল মারা গেছেন। সাইপ্রাস থেকে তার লাশ দেশে আনার প্রক্রিয়া চলছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *