ভারতকে ‘সত্যিকারের বন্ধু’ বললেন দেশ ছেড়ে পালানো আফগান মডেল

ভারতকে ‘সত্যিকারের বন্ধু’ বললেন দেশ ছেড়ে পালানো আফগান মডেল

তালেবান কাবুল নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার পরদিনই শত শত আফগান দেশ ছেড়ে পালাতে হামিদ কারজাই বিমানবন্দরে ভিড় জমিয়েছিল। এক বিমানেই উঠে বসেন ৬৪০ জন। সেই বিমানের যাত্রী ছিলেন আফগান পপ গায়িকা আরিয়ানা সাইদও। তালেবানদের ভয়ে আত্মরক্ষার্থে তিনিও দেশ ছেড়ে গেলেন মার্কিন মুলুকে।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশটিতে বর্তমান পরিস্থিতির জন্য সম্পূর্ণভাবে পাকিস্তানকে দায়ী করেন এ আফগান পপস্টার। এক্ষেত্রে তিনি ভারতের ভূমিকার প্রশংসা করেন। খবর এনডিটিভির।

আরিয়ানা সাইদ বলেন, ‘আমি পাকিস্তানকে দায়ী করছি। বছরের পর বছর ধরে আমরা ভিডিও এবং নানা প্রমাণ দেখেছি যে, তালেবানকে শক্তিশালী করার পেছনে কাজ করেছে পাকিস্তান। আমি আশা করবো, তারা পিছু হটবে এবং আমাদের রাজনীতিতে নাক গলানো বন্ধ করবে। ’

আরিয়ানার দাবি, তালেবান পাকিস্তানের আদেশ মেনে চলে। পাকিস্তানে তাদের ঘাঁটি রয়েছে এবং সেখানে তারা প্রশিক্ষণ পেয়েছে।

অপরদিকে তিনি ভারতের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, ভারত আমাদের সত্যিকারের বন্ধু।

আরিয়ানার মতে, ভারত আমাদের জন্য সবসময় ভালো। তারা আমাদের সত্যিকারের বন্ধু। তারা আমাদের মানুষের প্রতি অত্যন্ত সদয়। আমরা ভারতের প্রতি কৃতজ্ঞ।’

‘আফগানিস্তানের পক্ষ থেকে, আমি ভারতের প্রতি আমার কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে চাই এবং আমি ধন্যবাদ বলতে চাই। বছরের পর বছর ধরে আমরা অনুধাবন করেছি যে, ভারত আমাদের ভালো বন্ধু’, যোগ করেন আরিয়ানা।

২০০১ সালে তালেবান সরকারের পতনের পর গত ২০ বছর দেশটির নারী স্বাধীনতাপ্রত্যাশীতের অন্যতম পথিকৃত ছিলেন আরিয়ানা।

আফগানিস্তানের কাবুলে জন্ম আরিয়ানার। তার মা তাজাকিস্তানের। ৮ বছর বয়সে বাবা–মায়ের সঙ্গে পাকিস্তানের পেশোয়ারে চলে যান আরিয়ানা। সেখান থেকে সুইজারল্যান্ডে। এরপর ইংল্যান্ডে। ২০১১ সাল পর্যন্ত ইউরোপেই ছিলেন তিনি।

ইউরোপে থাকতেই আরিয়ানা ‘আফগান পেশারক’ গানটি গান, যা আফগানিস্তানে জনপ্রিয়তা পায়। তখনই তিনি সিদ্ধান্ত নেন, আফগানিস্তানে ফিরবেন। এর কিছুদিন পরেই আফগানিস্তানে ফেরেন ও নতুন নতুন অনেক গান উপহার দেন। তবে ফের তালেবানের পুনরুত্থানে দেশ ছাড়তে হলো এ গায়িকাকে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *