লর্ডস টেস্টে ভারতের অবিশ্বাস্য জয়

লর্ডস টেস্টে ভারতের অবিশ্বাস্য জয়

গতকাল সোমবার সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে ইংল্যান্ডকে ১৫১ রানে হারিয়েছে ভারত। রানের দিক দিয়ে এ্টাই সফরকারীদের সবচেয়ে বড় ব্যবধানের জয়।

শেষ দিনে জয়ের জন্য দ্বিতীয় ইনিংসে ইংল্যান্ডের লক্ষ্য ছিল ২৭২। এই রান তুলতে ৬৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলে স্বাগতিকেরা। তাতেই জমে ওঠে ম্যাচ। মোটামুটি তখন ভারতের জয় নিশ্চিত হয়ে যায়। এরপর থেকে উইকেটে ধুঁকতে থাকে ইংল্যান্ড।

কিছুটা হাল ধরার চেষ্টা চালান মইন আলি ও জস বাটলার। উইকেটে পড়ে থাকাতেই নজর দেন তারা। টিকেও যান দুজন। এই জুটি ভেঙে ভারতকে স্বস্তি এনে দেন সিরাজ। তাঁর বল মঈনের ব্যাট ছুঁয়ে যায় প্রথম স্লিপে। কোনো ভুল করেননি কোহলি। এতে ভাঙে ৯৫ বল খেলা ২৩ রানের জুটি।

মঈনের পর একইরকম ডেলিভারিতে কট বিহাইন্ড হয়ে যান স্যাম কারান। প্রথম ইনিংসের পর এবারও গোল্ডেন ডাকের তেতো স্বাদ পেলেন তিনি। লর্ডসে এটাই ‘কিং পেয়ার’ এর প্রথম নজির।

সতীর্থরা ফিরলেও এক প্রান্ত আগলে রেখে লড়াই চালিয়ে যান বাটলার। চেষ্টা করেন শেষ দিকের ব্যাটসম্যানদের নিয়ে টিকে থাকার। তাঁকে মাঝে কিছুটা সঙ্গ দিয়ে আশা জাগান রবিনসন। এক পর্যায়ে ম্যাচ গড়াচ্ছিল ড্রয়ের দিকে।

সেখান থেকে অবিশ্বাস্যভাবে ঘুরে দাঁড়ায় ভারত। বুমরাহর বোলিংয়ে ভেস্তে যায় ইংলিশদের ড্র করার চিন্তা। রবিনসনকে এলবিডব্লিউতে ফেরান তিনি। ভারত। ভাঙে বাটলার-রবিনসনের ৭৬ বলের জুটি। এরপর শেষে দিকে বাটলার ও জেমস অ্যান্ডারসনকে ফিরিয়ে দলকে জয় এনে দেন সিরাজ। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট নেন তিনি। ৩টি উইকেট পান বুমরাহ। মোহাম্মদ শামি পান একটি উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ভারত ১ম ইনিংস: ৩৬৪

ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: ৩৯১

ভারত ২য় ইনিংস: ১০৯.৩ ওভারে ২৯৮/৮ ইনিংস ঘোষণা (পান্ত ২২, ইশান্ত ১৬, শামি ৫৬*, বুমরাহ ৩৪*; অ্যান্ডারসন ২৫.৩-৬-৫৩-০, রবিনসন ১৭-৬-৪৫-২, উড ১৮-৪-৫১-৩, কারান ১৮-৩-৪২-১, মইন ২৬-১-৮৪-২, রুট ৫-০-৯-০)।

ইংল্যান্ড ২য় ইনিংস: (লক্ষ্য ২৭২) ৫১.৫ ওভারে ১২০ (বার্নস ০, সিবলি ০, হামিদ ৯, রুট ৩৩, বেয়ারস্টো ২, বাটলার ২৫, মইন ১৩, কারান ০, রবিনসন ৯, উড ০*, অ্যান্ডারসন ০; বুমরাহ ১৫-৩-৩৩-৩, শামি ১০-৫-১৩-১, জাদেজা ৬-৩-৫-০, সিরাজ ১০.৫-৩-৩২-৪, ইশান্ত ১০-৩-১৩-২)।

ফল: ভারত ১৫১ রানে জয়ী।

সিরিজ: ৫ ম্যাচের সিরিজে ভারত ১-০ তে এগিয়ে।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: লোকেশ রাহুল।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *