পর্তুগালে ভারপ্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন মারি’য়ানা ভিয়েরা ডা সিলভা

পর্তুগালে ভারপ্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন মারিয়ানা ভিয়েরা ডা সিলভা!

পর্তুগালের প্রধানমন্ত্রী আন্তোনিও কস্তা ১৬ থেকে ৩০ আগস্ট পর্যন্ত ছুটিতে থাকাকালীন দেশটির ইতিহাসে দ্বিতীয়বারের মতো একজন নারী ভারপ্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পাচ্ছেন বর্তমান প্রেসিডেন্সি অ্যান্ড অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ মর্ডানাইজেশনের মন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা মারিয়ানা ভিয়েরা ডা সিলভা।

ইতিমধ্যে রাষ্ট্রপতির কাছে এ বিষয়ে একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে যে বিষয়টি গভর্ননের কার্যালয় থেকে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

মারিয়ানা ভিয়েইরা ডা সিলভা বর্তমান করোনা মহামারির প্রেক্ষাপটে পর্তুগালের সরকার প্রধানের পর দ্বিতীয় ব্যক্তি হিসেবে তিনি মুখ্য ভূমিকা পালন করছেন। তাছাড়া পর্তুগিজ মন্ত্রিসভার সমন্বয়ের পাশাপাশি বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের নীতি প্রণয়ন, বাস্তবায়ন, মূল্যায়ন এবং সকল বিষয়ে পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে সরকারি কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য সমন্বয়ক ও নেতৃত্বের দায়িত্বে ছিলেন।

১৯৭৮ সালে রাজধানী লিসবনে জন্মগ্রহণকারী ৪৩ বছর বয়সী মারিয়ানা ভিয়েইরা লিসবন ইউনিভার্সিটি (আইএসসিটিই- আই ইউ এল) থেকে সমাজবিজ্ঞানের স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন তাছাড়া তিনি একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি পাবলিক পলিসিতে ডক্টরেটের পাঠক্রম অংশটি শেষ করেছেন এবং বর্তমানে পর্তুগালের স্বাস্থ্য এবং শিক্ষা নীতির উপর গবেষণা করছেন।

গত ২০০৯ থেকে ২০১১ সালে তিনি প্রধানমন্ত্রীর সহকারী সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন এছাড়া ২০০৫ থেকে ২০০৯ সালে তৎকালীন শিক্ষামন্ত্রীর উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করেছেন। তাছাড়া তিনি পর্তুগালের স্বাস্থ্য, শিক্ষা, বিচার ব্যবস্থার একজন গবেষক হিসেবে বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করেছেন।

এর আগে ২০০২, ২০০৩ এবং ২০০৪ সালে বর্তমান বিরোধী দল পিএসডির তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী জোযে মানুয়েল দোরাও বারোজো ক্ষমতায় থাকাকালে প্রথমবারের মতো নারী হিসেবে ভারপ্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন মানুয়েলা ফেরেইরা লেইট।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *