সড়ক দুর্ঘটনায় প্রকৌশলী নিহত

সড়ক দুর্ঘটনায় প্রকৌশলী নিহত

সিলেটের বালাগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় উপজেলা এলজিইডি উপসহকারী প্রকৌশলী মো. মোশাররফ হোসেন (৪৪) ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছেন। গুরুতর আহত হয়েছেন একই অফিসের চেইনম্যান রুবেল আহমদ।

শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বালাগঞ্জ-তাজপুর সড়কের বোয়ালজুড় বাজারে মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।

ঘটনাস্থল থেকে দ্রুত তাদের উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রকৌশলীকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত রুবেল আহমদকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি এখনো শঙ্কামুক্ত নন বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, প্রকৌশলী ও রুবেল আহমদ মোটরসাইকেলে উপজেলা সদরের দিকে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে বোয়ালজুড় বাজারে একটি ট্রাকের সঙ্গে মোটরসাইকেলের সংঘর্ষ হয়। মোটরসাইকেল চালনায় থাকা প্রকৌশলীর মাথায় জোরালো আঘাত পেয়ে রাস্তার উপর ছিটকে পড়েন। ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

প্রকৌশলী মো. মোশাররফ হোসেন দিনাজপুর সদর উপজেলার ফুলবাড়ি বাসস্ট্যান্ড এলাকার নিমনগর গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের পুত্র। নিহত প্রকৌশলীর আট বছর বয়সী এক ছেলে রয়েছে।

প্রায় সাড়ে তিন বছর যাবত তিনি বালাগঞ্জ উপজেলা এলজিইডি অফিসে কর্মরত ছিলেন বলে জানা গেছে। এ সময়ে সবাইকে আপন করে নিয়েছিলেন। অমায়িক ব্যবহারের অধিকারী এই প্রকৌশলীর মর্মান্তিক মৃত্যুতে তার সহকর্মী, উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। ময়নাতদন্ত শেষে রোববার বিকাল ৪টায় উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এর আগে লাশ নেয়ার জন্য প্রকৌশলীর স্বজনরা বালাগঞ্জে এসে পৌঁছান। প্রকৌশলীর ভাই কামাল হোসেন বলেন, সোমবার গ্রামের বাড়িতে দাফন সম্পন্ন করা হবে। বালাগঞ্জের সর্বস্তরের মানুষ আমার ভাইকে খুবই ভালোবাসতেন, তারা তাকে পরিবারের সদস্য হিসেবে দেখতেন। সবাই আমাদের সহযোগিতা করেছেন এজন্য সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

বালাগঞ্জ থানা সংলগ্ন নবীনগর জামে মসজিদের ইমাম কামরুল ইসলাম বলেন, প্রকৌশলী খুবই ভালো মনের আলেমভক্ত একজন মানুষ ছিলেন, দেখা হলেই সালাম দিতেন, কুশল বিনিময় করতেন। আল্লাহ তার এই বান্দাকে যেন বেহেশত নসিব করেন।

এ বিষয়ে বালাগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, যে ট্রাকের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়েছিল সেটি জব্দ করা হয়েছে এবং মামলার প্রস্তুতি চলছে।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *