শেখ জারাহ নিয়ে স্পষ্ট রায় দিল না ইসরাইলের সুপ্রিম কোর্ট

শেখ জারাহ নিয়ে স্পষ্ট রায় দিল না ইসরাইলের সুপ্রিম কোর্ভ
পূর্ব জেরুজালেমের শেখ জারাহ এলাকায় উচ্ছেদের সম্মুখীন হওয়া ফিলিস্তিনি বাসিন্দাদের নিয়ে একটি অতি স্পর্শকাতর মামলাটিতে কোনো স্পষ্ট রায় দিল না ইসরাইলের সুপ্রিম কোর্ট।

সোমবার বহুল আলোচিত মামলাটির শুনানি ছিল।ইসরাইলি সুপ্রিম কোর্ট দীর্ঘ এই আইনি লড়াইয়ের সমাপ্তি ঘটাতে একটি রুলিং দেওয়ার কথা ছিল।

তা না করে আদালত উভয় পক্ষকে আপোষরফা করার আহ্বান জানিয়েছে। খবর বিবিসির।

এ উচ্ছেদের ঘটনাকে নিয়ে তৈরি হওয়া উত্তেজনাই গত মে মাসে ইসরাইল ও হামাসের ১১ দিনের রক্তাক্ত যুদ্ধের রূপ নিয়েছিল। ফলে এ মামলাটি আন্তর্জাতিক মনোযোগের কেন্দ্রবিন্দু হয়ে ওঠে।

ইসরাইল প্রস্তাব দিয়েছে, চারটি ফিলিস্তিনি পরিবার শেখ জারাহতে তাদের বাড়িতে থাকতে পারবে – যদি তারা এটা স্বীকার করে নেয় যে একটি ইসরাইলি কোম্পানি ওই জমির মালিক ছিল।

আদালতের পরিকল্পনা অনুযায়ী ৭০টিরও বেশি ফিলিস্তিনি পরিবারের ‘সংরক্ষিত ভাড়াটে’র মর্যাদা অক্ষুণ্ণ থাকবে, এবং তারা যদি ভাড়া দেয়া অব্যাহত রাখে- তাহলে তাদের উচ্ছেদ করা যাবে না।

ফিলিস্তিনি পরিবারগুলো এ ধরনের কোন সমাধান আগেও প্রত্যাখ্যান করে।

সুপ্রিম কোর্ট শেখ জারাহর বাসিন্দা ফিলিস্তিনিদের একটি তালিকা সাতদিনের মধ্যে দিতে বলেছে – যার অর্থ, চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত অন্তত সাতদিন পিছিয়ে দেয়া হলো।

ইসরাইল অধিকৃত পূর্ব জেরুজালেমের একটি অঞ্চল হচ্ছে এই শেখ জারাহ। জেরুজালেম শহরের প্রাচীন অংশ এবং পবিত্র স্থানগুলোর কাছাকাছিই এই এলাকাটির অবস্থান। এই এলাকাটির জমির মালিক কে – এ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিবাদ চলছে।

এখানে বসবাসরত ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদ করার জন্য ইসরাইলি বসতি স্থাপনকারী গোষ্ঠীগুলো দীর্ঘদিন ধরে নানাভাবে চেষ্টা করে চলেছে।

ইসরাইল-ফিলিস্তিনি সংঘাতের একেবারে কেন্দ্রবিন্দুতে পূর্ব জেরুজালেম ও তার এই ছোট্ট পাড়াটির অবস্থান ।

ইসরাইল মনে করে পুরো জেরুজালেম শহরটিই তাদের রাজধানী। কিন্তু আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের অধিকাংশই এ ধারণাকে স্বীকৃতি দেয় না।

অন্যদিকে ফিলিস্তিনিরা চান, ভবিষ্যতের ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রের রাজধানী হবে এই পূর্ব জেরুজালেম।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *