পদ পেতে বাবা-মায়ের পরিচয় বদলে ফেলেছেন ছাত্রলীগ সভাপতি


ছাত্রলীগের পদ বাগিয়ে নিতে নিজের বাবা মায়ের পরিচয় বদলে ফেলেছেন তিনি। লুকিয়েছেন বয়সও। ভুয়া জাতীয় পরিচয়পত্র বানিয়ে তা জমাও দেন প্রধান নির্বাচন কমিশনারের কাছে।

এমন সব বিস্ফোরক অভিযোগ উঠেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি মো. ইব্রাহিমের বিরুদ্ধে।

এ ছাত্রলীগ নেতার জাতীয় পরিচয় পত্রের জালিয়াতির অভিযোগটির সত্যতা নিশ্চিত করা গেছে ইতোমধ্যে।

যুগান্তরের হাতে এসেছে মো. ইব্রাহিমের জালিয়াতির বেশ কয়েকটি প্রমাণ।

বিস্ময়কর ব্যাপার হলো এমন ভয়াবহ জালিয়াতি করেও দলে পদ নিয়ে বহাল তবিয়তে রয়েছেন তিনি। ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র ও সাংগঠনিক প্রধান শেখ হাসিনার নির্দেশনা উপেক্ষা করা তার কাছে কষ্টসাধ্য ব্যাপার নয়।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ২৭ বছরের বেশি বয়স্কদের ক্ষেত্রে ছাত্রলীগের পদায়ন নিষিদ্ধ বর্নিত। এছাড়া বিবাহিতরা ছাত্রলীগের কোনো পদে থাকতে পারেন না।

তাই বয়স লুকাতে ভুয়া জাতীয় পরিচয় পত্র তৈরি করেন মো. ইব্রাহীম। আর তা ২০১৮ সালের ১১-১২ মে অনুষ্ঠিত সর্বশেষ কাউন্সিলের আগে মহানগর উত্তরের তৎকালীন প্রধান নির্বাচন কমিশনার নুসরাত জাহান নুপুরের কাছে জমা দেন। জমা দেওয়া ওই জাতীয় পরিচয় পত্রের নম্বর – ১৯৯**০০৪৩।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *