ট্রেনে কাটা পড়ে প্রাণ গেল মায়ের, মৃত্যুশয্যায় শিশুসন্তান


কিশোরগঞ্জের ভৈরবে ট্রেনে কাটা পড়ে এক নারী নিহত


কিশোরগঞ্জের ভৈরবে ট্রেনে কাটা পড়ে এক নারী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় তার শিশুসন্তান গুরুতর আহত হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ভৈরবের সম্ভুপুর রেলওয়ে ক্রসিংসংলগ্ন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ঢাকাগামী আন্তঃনগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি ভৈরব রেলওয়ে স্টেশনে আসছিল। পথচারী অজ্ঞাত নারী তার এক বছর বয়সি শিশুকে কোলে নিয়ে রেললাইন পার হওয়ার সময় দুর্ঘটনাটি ঘটে।

ঘটনার খবর পেয়ে ভৈরব রেলওয়ে থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহত নারীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। তবে এখনও পর্যন্ত ওই নারীর পরিচয় পায়নি পুলিশ।

এ সময় গুরুতর আহত শিশুটিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়।

ভৈরব রেলওয়ে থানার ওসি মো. ফেরদৌস আহমেদ বিশ্বাস জানান, ট্রেন দুর্ঘটনায় অজ্ঞাত নারী ঘটনাস্থলে প্রাণ হারান। লাশ উদ্ধার করার পর শুক্রবার লাশের ময়নাতদন্ত করতে কিশোরগঞ্জ পাঠানো হয়।

ওই নারীর কোলের আহত শিশুকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয়। শিশুটির অবস্থা সংকটাপন্ন দেখে ডাক্তাররা তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে রেফার্ড করে। এখন শিশুটি সেই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

। এ ঘটনায় তার শিশুসন্তান গুরুতর আহত হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ভৈরবের সম্ভুপুর রেলওয়ে ক্রসিংসংলগ্ন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ঢাকাগামী আন্তঃনগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি ভৈরব রেলওয়ে স্টেশনে আসছিল। পথচারী অজ্ঞাত নারী তার এক বছর বয়সি শিশুকে কোলে নিয়ে রেললাইন পার হওয়ার সময় দুর্ঘটনাটি ঘটে।

ঘটনার খবর পেয়ে ভৈরব রেলওয়ে থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহত নারীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। তবে এখনও পর্যন্ত ওই নারীর পরিচয় পায়নি পুলিশ।

এ সময় গুরুতর আহত শিশুটিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়।

ভৈরব রেলওয়ে থানার ওসি মো. ফেরদৌস আহমেদ বিশ্বাস জানান, ট্রেন দুর্ঘটনায় অজ্ঞাত নারী ঘটনাস্থলে প্রাণ হারান। লাশ উদ্ধার করার পর শুক্রবার লাশের ময়নাতদন্ত করতে কিশোরগঞ্জ পাঠানো হয়।

ওই নারীর কোলের আহত শিশুকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয়। শিশুটির অবস্থা সংকটাপন্ন দেখে ডাক্তাররা তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে রেফার্ড করে। এখন শিশুটি সেই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *